চীনে হান্টাভাইরাসে বাসযাত্রীর মৃত্যু, ৩২ জনের শরীরে সংক্রমণ

চীনে হান্টাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়েছে৷ মারণ করোনাভাইরাসের মতোই হান্টাভাইরাসের ভয়ংকর চরিত্র৷ এটিও বায়ুবাহিত ভাইরাস নয়৷ এটিরও উপসর্গ করোনাভাইরাসের মতো৷

সোমবার চিনের হুনান প্রদেশে এই হান্টা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় এক ব্যক্তির৷ একটি চ্যাটার্ড বাসে করে শ্যানডং প্রদেশে যাওয়ারর সময় ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়৷ বাসে বাকি ৩২ জনের শরীরেও মিলেছে এই ভাইরাস৷ এই খবর প্রকাশিত হয়েছে চিনের গ্লোবাল টাইমসে৷

কী এই হান্টাভাইরাস: দ্য সেন্টার ফর ডিজিস কন্ট্রোলের-এর মতে, এই ভাইরাস ছড়ায় সাধারণত ইঁদুর প্রজাতির প্রাণী থেকে৷ তবে স্বস্তির খবর এই যে এটি করোনাভাইরাসের মতোই মানুষ থেকে মানুষের শরীরে ছড়িয়ে পড়ে না৷ যদিও হান্টাভাইরাসও করোনাভাইরাসের মতো ফুসফুসে সংক্রমিত হয় এবং শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা দেখা যায়৷

সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন ধূমপায়ীরা!

হান্টাভাইরাসের সংক্রমণ অর্থাৎ এইচপিএস-এর প্রাথমিক লক্ষণগুলির মধ্যে মাথাব্যথা, মাথা ঘোরা, ঠাণ্ডা লাগা এবং পেটের সমস্যা-সহ ক্লান্তি, জ্বর এবং পেশী ব্যথা৷ চিকিত্সা না-হলে এটি কাশি এবং শ্বাসকষ্ট দেখা দিতে পারে৷ সিডিসি অনুযায়ী এই ভাইরাসে মৃত্যুর হার ৩৮ শতাংশ৷

যদিও এইচএফআরএসের প্রাথমিক লক্ষণগুলি একই থাকে, এটি নিম্ন রক্তচাপ, তীব্র শক, ভাস্কুলার ফুটো এবং কিডনির সমস্যা দেখা যায়৷ তবে একটা ভালো খবর এইচপিএস এক ব্যক্তি থেকে অন্য ব্যক্তিতে ছড়ায় না৷ পাশাপাশি মানুষের মধ্যে এইচএফআরএস সংক্রমণ অত্যন্ত বিরল বলেও বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন৷ kolkata24x7.

Related Posts