ইরানের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে ইউক্রেন

ইউক্রেনীয় বিমানের উপর ‘ভুলবশত’ হামলার কথা স্বীকার করে একটি বিবৃতিও দিয়েছে ইরান। ওই দুর্ঘটনার জেরে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান ১৭৬ জন যাত্রী। এই বিবৃতির কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই এই মর্মান্তিক ঘটনার জন্য ইরানের কাছে ক্ষমা ও ক্ষতিপূরণের দাবি করলো ইউক্রেন।

ধূমপানে চেহারায় আকর্ষণ কমে

এর আগে মার্কিন কর্মকর্তারা দাবি করেন ইউক্রেনের বিমানের ১৭৬ জমের মৃত্যুর নেপথ্যে ইরানের তরফে ইরাকে মার্কিন সেনা ক্যাম্পের কাছে মুর্হুমুহু ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের ঘটনা। তবে এই ঘটনা যে একেবারেই ‘অনিচ্ছাকৃত’ সেটাও উল্লেখ করেছে ইরান৷

ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রোহানিও এই ঘটনার জন্য দুঃখপ্রকাশ করে বলেন, ‘এটা একটা মারাত্মক ভুল।’ বিমানের ব্ল্যাকবক্স আমেরিকান বিমান নির্মানকারী সংস্থা বোয়িং-কে দিতে চায়নি ইরান ৷ তাদের বক্তব্য ছিল, যে বিমানে ৮২জন ইরানের নাগরিক ছিলেন ৷ আর একজনও আমেরিকান ছিলেন না ৷ তাই বিমানে ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার কোনও উদ্দেশ্য তাদের ছিল না ৷

যৌন সম্পর্কে খুব সহজেই ছড়িয়ে পড়ে সারভাইক্যাল ক্যানসার

গত বুধবার তেহরান থেকে উড়়েছিল ১৭৬ জন যাত্রী নিয়ে ইউক্রেনের পিএস৭৫২ বিমান। বিমানে ৮২ জন ইরানি, ১১ ইউক্রেনীয়, ১০ সুইস, ৪ আফগান, ৬৩ কানাডীয়, ৩ ব্রিটিশ এবং ৩ জন জার্মান নাগরিক ছিলেন।

প্রবাসী টিভির ইউটিউব চ্যানেলে যোগ দিতে এখানে ক্লিক করুন।

বিনোদন বিভাগের সুপারহিট:

Related Posts