ভারতের উত্তরপ্রদেশে প্রকাশ্যে দুই কাশ্মীরি ফল বিক্রেতাকে বেধড়ক পিটুনি

আন্তজার্তিক ডেস্ক: প্রকাশ্যে রাস্তায় দুই কাশ্মিরী ফল বিক্রেতাকে বেধড়ক পিটিয়েছে গেরুয়া কুর্তা পরা কট্টর হিন্দু সংগঠনের সদস্যরা৷ ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিও এরই প্রমাণ করে৷

জানা গেছে, ওই দুই ফল বিক্রেতার অপরাধ ছিল তারা কাশ্মিরের অধিবাসী৷ প্রায় একমাস আগে পুলওয়ামায় আত্মঘাতী জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটে৷ কিন্তু সাম্প্রতিক ঘটনায় কাশ্মিরীদের উপর হামলার ঘটনায় যে কোনও ছেদ নেই তার প্রমাণ মিলল৷

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের সেন্ট্রাল লখনউ দালিগঞ্জ এলাকায়৷ বুধবার বিকেল ৫টার দিকে গেরুয়া কুর্তা পরা কয়েকজন ব্যক্তি এ এলাকায় আসেন৷ এই সময়ে ওই দুই কাশ্মিরী রাস্তার পাশে ফল বিক্রি করছিলেন৷ ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে, ঐ গেরুয়া কুর্তাধারীরা কাশ্মিরী ফল বিক্রেতাদের রাস্তায় ফেলে পেটাচ্ছেন, ফল বিক্রেতাদের একজন হামলাকারীদের কাছে ছেড়ে দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছেন৷ কিন্তু কোনও কিছুতেই ভ্রুক্ষেপ করছেন না হামলাকারীরা৷ উল্টে চিৎকার করে কুর্তাধারীরা বলছেন, তোমরা কাশ্মীরি, তাই তোমাদের পেটানো হচ্ছে৷ ঘটনায় প্রথমে হকচকিয়ে গেলেও স্থানীয়রা ঐ দুই কাশ্মীরিকে বাঁচাতে ছুটে আসেন৷ তাদের সামনে ঢাল হয়ে দাঁড়িয়ে তাদের রক্ষা করেন৷ স্থানীয় এক বাসিন্দা হামলাকারীদের সতর্ক করে বলেন, তোমরা নিজেদের হাতে আইন তুলে নিও না, পুলিশকে ডাকা হবে৷ কাশ্মিরীদের উপর হামলায় তীব্র নিন্দা জানান তারা৷ তারা জানান, অনেক বছর ধরে তারা এখানে ফল বিক্রি করছেন৷ স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, হামলাকারীরা সবাই বিশ্ব হিন্দু দলের সদস্য৷ এই ঘটনার জেরে লখনউ পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করেছেন৷ বাকি অপরাধীদের খোঁজা হচ্ছে৷ তবে প্রধান অভিযুক্ত বিশ্ব হিন্দু দলের সভাপতি বলে জানা গেছে এবং তিনি পলাতক রয়েছেন৷

ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা এই হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন৷ তিনি টুইটারে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে উদ্দেশ্য করে লিখেছেন, আপনি বলা স্বত্ত্বেও এই ধরণের ঘটনা প্রতিনিয়ত৷ যে রাজ্যে এ ধরণের ঘটনা ঘটেছে সেখানে আপনারাই ক্ষমতায় রয়েছেন৷ তাহলে কি আমরা আশা করতে পারি যে, পুলিশ কোনও পদক্ষেপ নিবেন? নাকি আপনার দেয়া এই আশ্বাস আরও একটি জুমলা?

ভারতীয় পাইলকে মুক্তি

Related Posts