বিজিবি-গ্রামবাসী সংঘর্ষে নিহত ৩

নাজমুল হোসেন, (রাণীশংকৈল), ঠাকুরগাঁও: ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলা সীমান্তে বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবির) গুলিতে পথচারী ও পরীক্ষার্থীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন এবং আরো বিশ জনের মতো গুরুতর আহত হয়েছেন| আহতদেরকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হসপিটালে ভর্তি করা হয়েছে|

মঙ্গলবার বেলা এগারোটার সময় হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের বহরমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন ৩নং বকুয়া ইউনিয়ন এর জহির উদ্দিনের ছেলে সাদেক (চল্লিশ), একই গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে নবাব (৩০) ও জয়নুল (১২)| নিহত ৩জনের মধ্যে দুজন ছিলেন পথচারী এবং অন্যজনকে আহতাবস্থায় দিনাজপুর মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার সময় নিহত হন।

আহত গুলিবিদ্ধরা হলেন, বহরমপুর গ্রামের বাবু (২৮), মিঠুন (১৮), ইসাহাক (৩৫), রাসেল (১৬), সাদেকুল, মুনতারা (৪৫), নওসাদ (২৫), আঃ হান্নান (৬০), জয়গুন (৩৫), নুর নেহার (৬০), তৈমুর (২৫), সিংহাড়ী গ্রামের আফসারুল (২৮) ও সোহেলসহ প্রায় ২০ জন। হরিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মরত ডাক্তার আব্দুস সামাদ চৌধুরী বলেন, চৌদ্দ জনের শরীর থেকে গুলি বের করা হয়েছে। তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য দিনাজপুরে প্রেরণ করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন হরিপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আমিরুজ্জামান। ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবি অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল তুহিন মাসুদ বলেন, যারা অপরাধ করেছে তাদের বিষয়ে তদন্ত করা হবে এবং আমরা কারও শত্রু নই কেউ আমাদের শত্রু নয় তাই যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদেরকে বিজিবির পক্ষ থেকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। ঘটনাস্থলে পরিদর্শনে গিয়ে তারা এ কথা বলেন|

অপরদিকে ঠাকুরগাঁও পঞ্চাশ বিজিবি অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল তুহিন মোহাম্মদ মাসুদ বলেন, তাদের একটি পেট্রোল টিম এলাকা থেকে চারটি গরু ধরে নিয়ে যায় এবং একদল চোরাকারবারী তাদের দেশীয় অস্ত্রের মুখে ফেলে তাদের সাথে বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে, এতে তাদের চারজন জন গুরুতর আহত হন| তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গুলি ছোঁড়েন।

Related Posts